• শনি. জানু ১৬, ২০২১

হোটেল হাসান ডট কম

আমার অনলাইন পত্রিকাতে প্রবেশ করায় আপনাকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা

শেষ ঠিকানা লেখক এম এ সবুজ মোল্লা

শেষ ঠিকানা লেখক এম এ সবুজ মোল্লা

শেষ ঠিকানা লেখক এম এ সবুজ মোল্লা part 3
উভয়ে নৌকায় কিছুক্ষণ ঘুরে সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরে। পরের দিন উভয়ের বান্ধবী হাসনা হেনার বাড়িতে বিবাহের দাওয়াত ছিলো

যদিও বিয়ে সন্ধ্যায় কিন্তু হাসনা ওদের কে সকালেই যেতে বলেছে। ঐদিন সকালে উভয়ে হাসনার বাড়িতে যায়।

যাওয়ার সাথে সাথে হাসনা ওদেরকে সোফায় বসতে দেয়।

উভয়ে সোফায় হেলান দিয়ে মুখোমুখী বসে পড়ে ।দক্ষিণা বাতাসে শিউলির চুলগুলো দুলতে লাগলো শিমুল অবাক নয়নে চেয়ে

আছে শিউলি কে অসাধারণ লাগছে শিমুল চোখের পলক ফেলতেই পারছে না ।শিউলি লজ্জায় লাল হয়ে আছে ।শিমুল কে

বললো কি দেখছেন এমন করে ? কথা শুনেই শিমুলের বিস্ময় কেটে যায় বলে তোমাকেই দেখছিলাম!শিউলি লাজুক ভাবে বললো

তাই নাকি ।আমাকে আবার দেখার কি আছে ?


তোমার ঐ মায়া বি চোখ দুটিতে যেন যাদু আছে হাসিতে যেন মুক্তা ঝরে আমার হৃদয় ছুঁয়ে যায়। তুমি আমার স্বপ্নের ভুবনে আবৃত্তি হীন কবিতা। কি ? না মানে কবিতা ওহ
শিউলি হাসতে হাসতে নিজের ভারসাম্য রক্ষাকরতে পারলো না ।অজানা শিহরণ শিউলি শিমুলের হাত আঁকড়ে ধরলো হুট করেই

আবার হাত ছাড়ল তুমি না,সরি উঁহু তুমি সম্বোধন টাই ভাল। খুব আপন মনে হয়। আচ্ছা আপনি আবারও আপনি?ঠিক আছে তু

-তু-তুমি কি কাউকে ভালবাস?শিউলির কথাটা শিমুলে র হৃদয়ে পূর্ণিমার চাঁদের মত ঝলক দিয়ে উঠলো তুমি কাউকে ভালবাস

না ?আগে আমার প্রশ্নের উত্তর দাও। না মানে আমার মতো মানুষের ভালবাসতে নাই। কিন্তু কেন ?


আমরা গরীব আর আজকালকার ভালবাসা মানেই তো বিত্তশালী হতে হবে বাবার বিশাল সহায় সম্পত্তি থাকতে হবে । নতুবা

ভালবাসার মানুষ টা টিস্যু পেপারের মত ব্যবহার করে ডাস্টবিন ফেলে চলে যাবে । বতর্মান যুগে ভালবাসা বলে কিছু নেই । যা

আছে তা হচ্ছে ধোঁকা যারা ধোঁকা দিতে পারে বেইমানি করতে পারে বতর্মান ভালবাসা তাদের জন্য। তুমি একটু খুঁজে দেখো

ক্যামপাশে বা সমাজের বিভিন্ন স্তরে । ভালবাসার অর্থ আজকাল শুধুই টাইম পাস । ভালবেসে সারাজীবন পাশে থাকার গল্প

হাজার দু চারটা । আমি এমন একজন কে খুজি যে মানুষ টা শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত পাশে থাকবে। তাছাড়া গরিবের ভালবাসার

মূল্যায়ন কেউ করে না । কেউ যদি ভালবাসে?কি আমার মত ছেলেকে কেউ আবার ভালবাসবে?হ্যা শিউলি শিমুলের দুটি হাত

ধরে বলে হ্যা শিমুল আমি তোমাকে ভালবাসি। I love uপ্লিজ শিমুল আমাকে তুমি ফিরিয়ে দিওনা। আমি কথা দিচ্ছি আজ যে

হাত আমি ধরছি


দেহের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত তোমার শুধুই তোমার থাকবো ।


এতো দিনে শিমুল তার স্বপনের রাজ কন্যা কে যেন খুঁজে পেয়েছে।বুকের গভীরে যেন ভালবাসার ঢেউ উঠেছে ।


পৃথিবীতে প্রত্যেক টা বসন্ত যেন তার কাছে নতুন লাগছে ।


I love 143,143 Shiuly দুজন দুজনকে জড়িয়ে ধরলো শিমুল শিউলির ঠোঁটের উপরে আলতো করে ঠোঁট রাখলো।

সুখের শিহরণে ও লজ্জায় শিউলি কাঁপতে লাগলো হঠাত্ দরজার কড়া নড়তেই দুজন দুজনকে ছেড়ে দিলো। হাসনা রুমে ঢুকল
চা বিস্কুট দিয়ে ই কেটে পড়লো* Next p4

উপন্যাস $শেষ ঠিকানা লেখক এম এ সবুজ মোল্লা part4

হাসনা বিষয়টি টের পেয়ে বললো আমি যাই রে আমার কিছু কাজ আছে ।

ওর চলে যাওয়া দেখে দুজনেই হাসলো । শিমুল বললো শিউলি আজ থেকে তুমি শুধুই আমার শিউলি বললো হুম মহারাজ

চিরদিনের জন্য তুমি ও শুধুই আমার। ঠিক আছে হাতে হাত রেখে শফত করো কখনও আমাকে ছেড়ে যাবে না ।

দুজনে শফত করে কেউ কাউকে কখনোই ছেড়ে যাবে না । এর মধ্যে হাসনা এসে বললো শিমুল , বাজার থেকে আমার কিছু

জিনিস আনতে হবে ও আচ্ছা যাচ্ছি ।শিমুল বাজারে গেলো । পথের দিকে তাকিয়ে রইল শিউলি।হাসনার বিবাহ শেষে শিউলি

রংপুরে চলে যায় ।শিমুল বাসায় ফেরে।ধীরে ধীরে ওদের ভালবাসা গভীর থেকে গভীরতর হতে থাকে ।সীমাহীন আকাশের চেয়ে

ও অসীম। উভয়ের যেন দুটিআত্নার একটি দেহ দুটি মনের প্রেমিক সত্তা হয়েছে একাকার। দুটি মনের একটাই ভাষা শুধু

তোমাকে চাই।শিউলির গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রামের চিলমারী থানাহাটে।শিমুলে র বাড়ি রংপুর বদরগন্জ নাগেরহাটে। শিমুল আর

শিউলি দুজনে তিস্তার Tবাঁধে প্রবাহিত তিস্তা নদীর তীরে বসে কথা বলছে ।শিউলি বললো আচ্ছা শিমুল আমি মরে গেলে তুমি খুব

কষ্ট পাবে তাই না ?শিমুলে র বুকের ভিতরে যেন মোছড় দিয়ে উঠলো ।শিমুলে র দুচোখে অশ্রু ঝড়ছে শিমুল বললো প্লিজ শিউলি

এমন বাজে কথা বলো না । তোমাকে ছাড়া আমি কি নিয়ে বাচবো?শিউলি শিমুলে র দুচোখের অশ্রু মুছে দিয়ে ভালবাসার পরশ

দিয়ে বলে শিমুল তুমি কেন আমাকে এত ভাল বাস?শিউলি আমি শুধু এতটুকু জানি আমার হৃদয়ের সব টুকু ভালবাসা শুধুই

তোমাকে ঘিরে ।শিউলি বললো শিমুল এত ভালবাসার কি আমার কপালে সইবে? কেনো সইবে না শিউলি? শিউলি আরো কাছাকাছি শিমুলে র গা ঘেঁষে বসালো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *